সোনারতরী

 

শিক্ষার মহৎ অভিযাত্রায় সংস্কৃতির সোনারতরী

ফুলকি সুষ্ঠু সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে শিক্ষা বিস্তারের কাজ করছে। সেই সাথে বলা যায় শিক্ষার জন্যে প্রয়োজনীয় ও উপযোগী সাংস্কৃতিক বাতাবরণ তৈরির কাজ করে চলেছে। সেই লক্ষ্যে মূলত অন্যান্য স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্যে পরিচালিত সাংস্কৃতিক স্কুল এটি।

এখানে এক দল নিবেদিতপ্রাণ উষ্ণহৃদয় মেধাবী সংস্কৃতিকর্মী ও শিক্ষাকর্মী শিশুদের মানসগঠনে কাজ করে থাকেন। নিজের সন্তানকে নিয়ে অভিভাবকগণ আমাদের সাথে সোনারতরীর এই অভিযাত্রায় যুক্ত হয়ে সামগ্রিকভাবে সমাজের বর্তমান অবস্থার গুণগত উন্নতির মহৎ প্রয়াসে সহযাত্রী হচ্ছেন।

এটি এমন এক সৃজনশীল সাংস্কৃতিক স্কুল যেখানে শিশুর সুস্থ মানবিক মানস গঠনের লক্ষ্যে কলাচর্চাসহ আনুষঙ্গিক নানা বিষয় অনুশীলনের ব্যবস্থা আছে।

সাংস্কৃতিক স্কুল সোনারতরীর বৈশিষ্ট্য

বিষয়সমূহ প্রধান দুটি ভাগে বিভক্ত -
খ. শিল্পকলা ও সাংস্কৃতিক অনুশীলন
ক. সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পাঠ

প্রথম পর্যায়ে অন্তর্ভুক্ত বিষয় :
সংগীত, চারু ও কারুকলা, নৃত্য, উচ্চারণ ও আবৃত্তি, অভিনয়, ব্রতযোগ (ব্রতচারী ও যোগের সমন্বয়)।

দ্বিতীয় পর্যায়ে অন্তর্ভুক্ত বিষয় :
সাহিত্য, ভাষা, অমর ব্যক্তিত্ব, অবিস্মরণীয় কীর্তি, বাঙালির ইতিহাস, বিশ্বপরিচয়, বিজ্ঞান, আলোকচিত্র, চলচ্চিত্র, প্রকৃতি ও পরিবেশ।

এ স্কুল বসে সপ্তাহে দু’দিন - বৃহস্পতি ও শুক্রবার।

প্রবেশ পর্ব
৫ বছর: হাসিখুশি
৬ - ৭ বছর: উৎসব (প্রারম্ভিক ১ ও ২)
৮ - ৯ বছর: বিস্ময় (প্রাথমিক ১ ও ২)

অনুশীলন পর্ব
১০ - ১১ বছর: আনন্দ
১২ - ১৩ বছর: মুগ্ধ
১৪ - ১৫ বছর: সৃষ্টি, ব্যাপ্তি, শিখর

প্রত্যেক ছাত্র অনুশীলন পর্ব থেকে সংগীত, নৃত্য ও চারু-কারুকলার মধ্যে যে কোনো একটি বিষয়কে প্রধান হিসেবে গ্রহণ করতে পারে। তবে সকলেই সাধ্যমত সকল বিষয় জানার চেষ্টা করবে। কোনো শিল্পকলায় ব্যক্তিগত দক্ষতা অর্জিত না হলেও শিক্ষার্থীর রসগ্রহণের যোগ্যতা যেন অর্জিত হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হয়।

যেসব শিক্ষার্থী সঙ্গীত, নৃত্য বা চারুকলায় প্রবেশপর্বেই বিশেষ পারদর্শিতা অর্জন করে এবং সে নিজে ও তার অভিভাবকগণ এ বিষয়েই তার উচ্চতর প্রশিক্ষণে আগ্রহী তাদের জন্যে বিশেষ ব্যবস্থা থাকছে।

শিক্ষাবর্ষ: বৈশাখ-চৈত্র

 

সোনারতরী সারা বছর নানা রকম সাংস্কৃতিক কার্যক্রম গ্রহণ করে -

  • ছোটদের বৈশাখী মেলা
  • বার্ষিক চারুকলা প্রদর্শনী
  • বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
  • বসন্ত উৎসব
  • পিঠা উৎসব ইত্যাদি।

সোনারতরী ভর্তির তথ্যাবলী

  • সোনারতরীর শিক্ষাবর্ষ বাংলা সন অনুযায়ী পরিচালিত হয়।
  • সোনারতরীর ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয় চৈত্র (মার্চ) মাস থেকে। শিক্ষাবর্ষ শুরু হয় বৈশাখ (এপ্রিলের দ্বিতীয়ার্ধ) মাস থেকে।
  • সোনারতরীতে ভর্তির ন্যূনতম বয়স ৫ বছর।
  • ভর্তির ব্যাপারে স্কুল কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।
  • ভর্তি ফর্ম দেওয়া, জমা নেওয়া, ভর্তি পরীক্ষা ও ভর্তির ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী সূচী অনুসরণ করা হয়।
  • স্কুল শুরুর অন্তত দশ মিনিট আগে ছাত্রছাত্রীকে স্কুলে পৌঁছাতে হবে এবং স্কুল ছুটির আধঘণ্টার মধ্যে প্রত্যেক অভিভাবককে স্ব স্ব সন্তানকে নিয়ে যেতে হবে।
  • নিয়মাবলী সংশোধন, পরিমার্জন ও প্রয়োগের ক্ষেত্রে সর্বাধ্যক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।