প্রচ্ছদ
নিউজ
একক নিউজ

নৃত্যাঞ্জলি ও সৃষ্টি কালচারাল সেন্টার-এর যৌথ নৃত্য-যাত্রা নৃত্যের তালে তালে

শনিবার, ০২ নভেম্বর, ২০১৯ ~ দুপুর ০৩:৪৭ মিনিট

নৃত্যাঞ্জলি ও সৃষ্টি কালচারাল সেন্টার-এর যৌথ নৃত্য-যাত্রা নৃত্যের তালে তালে ফুলকির সহযোগী সংগঠন নৃত্যাঞ্জলি চট্টগ্রামে উপমহাদেশের ধ্রুপদী ধারার নৃত্যশৈলী কত্থক ও ভরতনাট্যমে প্রশিক্ষণ শুরু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় নৃত্যচর্চার প্রসারের লক্ষে সৃষ্টি কালচারাল সেন্টার-এর ২৫ বছর উদযাপনের অংশ হিসেবে নৃত্যাঞ্জলি ও সৃষ্টির যৌথ উদ্যোগে শাস্ত্রীয় নৃত্যানুষ্ঠান ১ নভেম্বর ২০১৯, ১৬ কার্ত্তিক ১৪২৬, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় টিআইসি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে নৃত্যাঞ্জলি, ফুলকির ভরতনাট্যম নৃত্য শিল্পীরা ‘শ্রী রাম চন্দ্র, গনেশ বন্দনা, স্বাগতম কৃষ্ণ ও তিল্লানা’ পরিবেশন করে। যা অসাধারণ পরিবেশে তৈরি করে। নৃত্যাঞ্জলি কত্থক নৃত্য শিল্পীরা শুরুতে সুনির্মল বসুর ‘সবার আমি ছাত্র’ কবিতার সাথে নৃত্য পরিবেশন করে। এরপর কত্থক শাখার শিক্ষার্থীদের শুদ্ধ নৃত্য প্রস্তুতি ‘দ্যা জার্নি অব কত্থক, নৃত্য গুরু অসিম বন্ধু ভট্টাচার্যের কম্পোজিশনে দৈত কত্থক পরিবেশনা- নৃত্য ছন্দে আনন্দে ও তারাণা’ পরিবেশন করে। নৃত্য পরিচালনা করেন হাসান ইসতিয়াক ইমরান তাকে সহযোগিতা করেন সপ্তর্ষি তুমা। যন্ত্রানুষঙ্গে ছিলেন এস্রাজে অশোক কুমার সরকার ও তবলায়- আশিষ কুমার দে। সৃষ্টির নৃত্য শিল্পীরা প্রথম পর্বে ‘মার্গাম, জাতিস্বরম, শব্দম, তিল্লানা পরিবেশন করে। দ্বিতীয় পর্ব সাজানো হয় চিত্রিত বিষয় দিয়ে যেখানে- আগুনের পরোশ মনি, মাঝি মাল্লার নৃত্য, সাঁওতাল নৃত্য, উৎসব নৃত্য, যাও বলো তারে, দেশাত্ববোধক নৃত্য পরিবেশন করে দর্শকদের মন জয় করে। সৃষ্টি কালচারাল সেন্টার সকল নৃত্য পরিচালনায় ছিলেন আনিসুল ইসলাম হিরু। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ফুলকি ট্রাষ্টের সভাপতি কবি সাংবাদিক আবুল মোমেন ও বিশিষ্ট রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী অধ্যক্ষ শীলা মোমেন ও সৃষ্টি কালচারাল সেন্টারের পরিচালক আনিসুল ইসলাম হিরু।

নোটিশ বোর্ড